ভূতের মুখে রামনাম কথাটি আমরা প্রায়ই ব্যবহার করে থাকি। সাধারণত অসম্ভব বা অবিশ্বাস্য ঘটনা/ব্যাপার বোঝাতে আমরা ভূতের মুখে রামনাম কথাটি ব্যবহার করি। অবশ্য এই কথাটির পেছনে রয়েছে এক বিরাট পৌরাণিক কাহিনি।

বাংলায় দেবযোনি নামে একটা শব্দ আছে। যাদের জন্ম দেবতা থেকে কিন্তু ক্ষমতা ও অন্যান্য দিক দিয়ে দেবতার মতো নয়, তাদেরকে মূলত দেবযোনি নামে অভিহিত করা হয়। দেবযোনিরা দশ প্রকারের হতে পারে—অপ্সরা, পিশাচ, ভূত, গন্ধর্ব, বিদ্যাধর, কিন্নর, যক্ষ, রাক্ষস, গুহ্যক ও সিদ্ধ।

এই ভূতের চেহারা খুবই ভয়ংকর রকমের। যে-কোনো সাহসী মানুষকেও মুহূর্তেই ভীত করে দিতে সক্ষম এরা।
এরা দেখতে খুবই রোগাপটকা ধরনের। দেখলে মনে হয় যে গায়ে হাড় ছাড়া অন্যকিছু অবশিষ্ট নেই।

তাদের হাতে থাকে অস্বাভাবিক লম্বা নখ, বড়ো বড়ো রক্তাক্ত চোখ, লম্বা হাত-পা, বিশ্রী রকমের কণ্ঠস্বর, অনেক লম্বা ধরনের কান ও দাঁত। ঠোঁট দেখলে মনে হয় যে ঝুলে আছে। এদের আরেকটা বৈশিষ্ট্য হচ্ছে যে, এরা উলঙ্গ থাকতে পছন্দ করে।

তবে মাঝে মাঝে এদেরকে অদ্ভুত কাপড় পরিহিত অবস্থায়ও দেখা যায়। পুরাণমতে এদের সংখ্যা প্রায় ১১ কোটি। এই ভূতেরা দেবতা-অসুরদের সঙ্গেও যুদ্ধ করত। যুদ্ধে এদের প্রধান হাতিয়ার ছিল ত্রিশূল ও তির-ধনুক।

অনেক পুরাণে দেখা যায় যে, শিব বা রুদ্রই ছিল এদের সর্দার বা দলনেতা। আবার কোথাও কোথাও শিবের শিষ্য নন্দীবীরভদ্রকে এদের সর্দার হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে। এছাড়া অনেক পুরাণে বিনায়কস্কন্দকে এদের সর্দার হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

কথিত আছে যে, অন্ধক নামের এক দৈত্য একদিন বিনায়ককে আক্রমণ করেন। কিন্তু তার কাছে হেরে যান ভূতের সর্দার বিনায়ক। প্রতিশোধপরায়ণ হয়ে বিনায়ক তাকে আক্রমণ করার ফন্দি আঁটতে থাকেন। এক পর্যায়ে তিনি নন্দীর সঙ্গে পরামর্শ করে একত্রে কাজ করতে শুরু করেন।

একসময় তারা শক্তি সঞ্চার করে অন্ধককে আক্রমণ করেন। অন্ধক ছিলেন একা। অসহায় হয়ে তিনি শিবের কাছে গিয়ে সাহায্য প্রার্থনা করলেন। একদিন শিব অন্ধককে কয়েকজন ভূত উপহার দেন। শেষে অন্ধকও শিবের শিষ্য হিসেবে স্থান লাভ করেন। এরপর তার নাম হয় ভৃঙ্গী।

তবে আরেক পুরাণ অনুযায়ী অন্ধক শিবের বিরুদ্ধে যুদ্ধে অবতীর্ণ হন। যুদ্ধে অন্ধক হেরে যান এবং শিবের শিষ্যত্ব গ্রহণ করেন, তখন তার নাম হয় ভৃঙ্গী।

যদিও এই ভূতেরা শিব বা শিবের শিষ্য নন্দী ও ভৃঙ্গীর অনুগামী, কিন্তু এরা রামের নাম শুনতে পারে না। কথিত আছে যে, রামের নাম শোনামাত্রই ভূতেরা পালিয়ে যায়। যারা রামের নাম শুনতেই পারে না, তারা রামের নাম জপবে কী করে! এটা একেবারেই অসম্ভব ঘটনা।
নিষেধ/নিষিদ্ধ | শিক্ষা